হুরায়রার হুংকার । পর্ব ৩ । মেহেরাজ হাসান শিশির


হুরায়রার চাচা ইতালিফেরত । ছোট্ট একটি ঘরে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন । নোয়াখালীতে ইতালিফেরত মানুষ বিরল। ইতালিতে থাকা মানুষ দেখতে কেমন হয় তা-ই দেখতে প্রতিদিন দূর থেকে ছুটে আসছে মানুষ।বাড়িতে তিলধারনের জায়গা নেই।
তড়িদ্বেগে ব্যবস্থা নিল স্বাস্থ্য দপ্তর।দাঙ্গা পুলিশের লাঠির বাড়ি খেয়ে পালাল লোকজন।চাচার ঘরের সামনে একজন গ্রাম্য চৌকিদারকে লাঠি হাতে বসিয়ে পুলিশ চলে গেল।
চৌকিদারকে এটাসেটা দিয়ে চাচা প্রায়ই বাইরে চলে আসেন।শুরুতে চকলেট টফি বা পারফিউম দিয়ে চৌকিদার মশাইকে তুষ্ট রাখা গেলেও শেষে হুরায়রার জন্য আনা আইফোনটা তাকে দিয়ে দিতে হলো।
দিন দশেক পর হুরায়রা নোয়াখালী গিয়ে দেখতে পেল তার জন্য আনা আইফোন দিয়ে সেলফি তুলে ফেসবুকে আপলোড দিচ্ছে চৌকিদার।সে তৎক্ষনাৎ চৌকিদারের নিতম্ব তাক করে কষে এক লাথি লাগিয়ে আইফোনটা ছিনিয়ে চাচার কাছে চলে গেল।
লাথি খেয়েই চৌকিদার দৌড়ে স্বাস্থ্য দপ্তরে খবর দিল।লোকও এল চটজলদি।
চাচার সংস্পর্শে আসার কারনে হুরায়রাকে কোয়ারেন্টিন দেয়া হলো।তবে বাড়িতে কোন ঘর খালি না থাকায় ছাগলের খোঁয়াড়ে রাখা হলো হুরায়রাকে।সাইনবোর্ড টানানো হলো_
ছাগল মানুষ ভেদ নাই করোনামুক্ত দেশ চাই!

হুরায়রার হুংকার । পর্ব ৩ । মেহেরাজ হাসান শিশির

মেহেরাজ হাসান শিশিরের ফেসবুক টাইমলাইন থেকে নেয়া

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

0
    0
    Your Cart
    Your cart is emptyReturn to Shop